আমেরিকার চাকরি ছেড়ে গ্রাম এ এসে আখ ও ডালিমের চাস, লক্ষ টাকা ইনকাম

0
34

বর্তমান এ বেশিরভাগই যুবক যুবতী বিদেশে গিয়ে কোনো কাজ করে পূর্ণ স্বচ্ছলতার সাথে জীবনযাপন করতে পছন্দ করেন এবং ভালো মতো উপর্জন করা এবং সে দেশ এ ভালো করে বসবাশ করতে চান। কিন্তু এরম খুবই কম সংখক লোকই দেখা যায়। কিন্তু এরম খুবই কমই সোনা গেছে যে বিদেশের চাকরি ছেড়ে এসে গ্রাম এ চাষবাস করা। সেই সমস্ত লোকের মধ্যে রয়েছেন, পাঞ্জাবের মোগা জেলার লোহারা গ্রামের বাসিন্দা রাজবিন্দর সিং ধালিওয়াল, যিনি আমেরিকা ছেড়ে ভারতে বসবাস করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন এবং মাত্র কয়েক একর জমিতে চাষ করে ভালো লাভ করছেন। আসুন জেনে নেওয়া যাক সম্পূর্ণ বিষয়টি সম্পর্কে।

Advertisement

রাজবিন্দর সিং ধালিওয়াল তাঁর ৮ একর জমিতে প্রাকৃতিক উপায়ে আখ, আলু, হলুদ, সরিষার মতো ফসল চাষ করছেন এবং এই ফসলগুলিকে প্রক্রিয়াজাত করে গুড়, চিনি এবং হলুদের গুঁড়ো তৈরি করেন এবং বর্তমানে কৃষকদের ঐতিহ্যবাহী চাষের চেয়ে একর প্রতি এক লাখ টাকা বেশি লাভ পাচ্ছেন। তিনি জানিয়েছেন, পাঁচ বছর আমেরিকায় থাকার সময় তিনি ট্রাক চালানো থেকে শুরু করে হোটেলেও কাজ করেছেন। এরপর ২০১২ সালে আমেরিকা ছেড়ে ভারতে আসার সিদ্ধান্ত নেন।

গ্রাম এ এসে তিনি ‘কিষাণ বিরাসাত মিশন’ নামে একটি এনজিও থেকে কৃষি সংক্রান্ত তথ্য পেতে শুরু করেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁর অনেক কৃষক বন্ধুর সাথে কথা হয় এবং ২০১৭ সালে তিনি ৬ একর জমিতে সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক চাষ শুরু করেন। এরপর ২০১৭ সালে প্রায় পাঁচ একর জমিতে প্রথমবারের মতো আখ রোপণ করেন এবং মাঠের সীমানায় তিন হাজারের বেশি ফলের গাছও রোপণ করেন।

রাজবিন্দর সিং ধালিওয়াল জানান, এখানে সাধারণ গুড় প্রতি কেজি ১১০ টাকা এবং মসলা গুড় প্রতি কেজি ১৭০ থেকে ৩৫০ টাকায় বিক্রি হয়। তিনি সিওজে ৬৪, সিওজে ৮৫, সিওজে ৮৮র মতো আখ, গুড় এবং চিনি তৈরিতে ব্যবহার করেন এবং প্রতি বছর তিনি কমপক্ষে ১০ টন গুড় উৎপাদন করেন, যা থেকে ৮ লাখ আয় হয়।

তিনি রো জানিয়েছেন, তিনি এখানে কিছু গাছও লাগিয়েছেন, যার ফল বিক্রি করেও আয় করা যায় এবং তিনি তাঁর ক্ষেতে বিশেষ পদ্ধতিতে আলু রোপন করেন, যেই প্রক্রিয়াটি কম জল খরচ করে এবং অপসারণ করা সহজ এবং তাঁর বার্ষিক আয় এখন প্রায় ১২ লক্ষ টাকা।

Advertisement

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে