চন্দননগরে ধরা পড়ল ভুয়ো পুলিশ অফিসার

0
172

গভীর রাতে লালবাতি গাড়িতে দুইজন সঙ্গীকে নিয়ে মদ্যপান করছেন এক পুলিশ অফিসার!কাছে যেতেই ভুল ভাঙল।ধরা পড়ল ভুয়ো পুলিশ অফিসার।

এবার ভুয়ো ডিএসপি ধরা পরল চন্দননগরে, ধৃতের নাম সিদ্ধার্থ চক্রবর্তী বাড়ি চন্দননগর বক্সি গলিতে।
গতকাল রাত ১১ টা ১৫ নাগাদ চন্দননগর স্ট্যান্ড রোডে রানীঘাটের কাছে একটি সাদা স্করপিও গাড়ি কে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে পুলিশ।গাড়িটির নম্বর WB 19J 7988 গাড়িটিতে লালবাতি ও হুটার লাগানো ছিল।সামনে গভঃ অফ ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টিকার লাগানো ছিল।সন্দেহ হয় পুলিশের।রানী ঘাট থাকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে চন্দননগর থানা।পুলিশ গিয়ে গাড়িটিকে আটক করে।গাড়ির মধ্যে পুলিশের পোশাক পড়া একজনকে বসে থাকতে দেখা যায়।জিজ্ঞাসা করলে সে নিজেকে ডিএসপি পরিচয় দেয়।সোল্ডারে তিনটে তারা পুলিশের পোষাক বুকে নেমপ্লেট হুবুহু পুলিশ অফিসার।দেখে বোঝার উপায় নেই।কথা বলতেই মুখে মদের গন্ধ পেয়ে সন্দেহ বাড়ে।একজন ডিএসপি এত রাতে স্ট্যান্ডে মদ্যপান করছেন,তার সঙ্গে আরো দুজন ছিল।থানায় নিয়ে গিয়ে জেরা করতেই বেরিয়ে আসে আসল সত্য।
চন্দনগর পুলিশ জানিয়েছে,
চন্দননগর বক্সি গলির বাসিন্দা বছর ত্রিশের সিদ্ধার্থ চক্রবর্তী আগে মেডিকেল রিপ্রেজেনটেটিভ এর কাজ করতেন।এক সময় গাড়িও চালিয়েছেন।সেই সুবাদে জেলা প্রশাসনের গাড়ি চালায় এমন কয়েকজনের সঙ্গে আলাপও রয়েছে।বর্তমানে কিছুই করেন না।ডিএসপি সেজে ঘুরে বেড়ান।চন্দননগর পুলিশ তার বিরুদ্ধে সুয়ো মোটো মামলা রুজু করেছে।আজ তাকে চন্দননগর আদালতে তোলা হবে।
ভুয়ো ভ্যাকসিন কান্ডে দেবাঞ্জন দেব গ্রেফতার হবার পর থেকেই একের পর এক ভুয়ো সিবিআই অফিসার,ভুয়ো আইনজীবী,ভুয়ো মানবাধিকার কর্মি গ্রেফতার হয়।এবার হুগলিতে ধরা পড়ল ভুয়ো পুলিশ অফিসার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে