জন বার্লার পর এবার সৌমিত্র খাঁ, পৃথক জঙ্গলহলের রাজ্যের দাবিতে সরব হলেন বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ

0
75

কয়েকদিন আগেই উত্তরবঙ্গকে পৃথক রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার দাবি জানিয়েছিলেন আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন বার্লা যা রাজ্য রাজনীতিতে আলোড়ন ফেলেছিল। এবার সেই পথেই হাঁটলেন বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। বীরভূম, বর্ধমান, দুর্গাপুর, আসানসোল, বাঁকুড়া, বিষ্ণুপুর, ঝাড়গ্রাম, দুই মেদিনীপুর আর হুগলির কিছুটা অংশ নিয়ে যে পৃথক জঙ্গলমহল জেলা ছিল, সেটিকেই আলাদা রাজ্য করার দাবি জানিয়েছেন তিনি।

জন বার্লার উত্তরবঙ্গের উন্নয়নের মতোই সৌমিত্র খাঁর বক্তব্য, “আমাদের রাজ্যে উন্নয়ন হয় না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজত্বে উন্নয়ন হওয়া সম্ভব নয়। তাই জঙ্গলমহলের মানুষের কথা ভেবেই আমি আলাদা রাজ্যের দাবি জানাচ্ছি।” যদিও জন বার্লা উত্তরবঙ্গকে আলাদা রাজ্য করার দাবি জানালেও দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, বাংলা ভাগের দাবি তার দল সমর্থন করে না। তাই এ নিয়ে আর কোনো প্রশ্নই উঠছে না। একই কথা বলেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু এবার সৌমিত্র খাঁয়ের বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে আবারও রীতিমত অস্বস্তিতে পড়েছে গেরুয়া শিবির। বার্লার বক্তব্যকে নাকোচ করলেও সৌমিত্র খাঁয়ের দাবি প্রসঙ্গে দলের তরফে কিছু জানানো হয়নি।

তবে তিনি কেন আলাদা রাজ্যের দাবি তুলছেন? জবাবে সৌমিত্র বলেন, “অন্য রাজ্যের নেতাদের মুখ্যমন্ত্রী বহিরাগত বলেন। দেশের প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এমনকি কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদেরও বহিরাগত বলেন। এর পরে কবে জঙ্গলমহলের বাসিন্দাদেরও বহিরাগত বলবেন। সেই সুবিধা করে দিতেই আমাদের আলাদা রাজ্য করে দিন উনি।” একের পর এক বিজেপি সাংসদ কেন এরকম প্রসঙ্গ তুলছেন তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে বাড়ছে বিতর্ক। আদতে বলতে গেলে বাংলা ভাগের এই প্রসঙ্গে বিজেপি রাজ্য বা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের মদত না থাকলে পরপর দুই সাংসদ এরকম মন্তব্য করার পরেও দল তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না কেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে