তৃতীয় ঢেউ আসার আগে ঘরোয়া বিমানের ধারণ ক্ষমতা ৫০% থেকে বাড়িয়ে করা হল ৬৫%

0
75
aircraft increases pandamic

বিমান পরিবাহক মন্ত্রক কতৃক নির্দেশ অনুসারে, ঘরোয়া-বিমানের যাত্রী সংখ্যা ৫০% থেকে বাড়িয়ে করা হল ৬৫%।

১জুনের আগে ঘরোয়া-বিমানে যাত্রী নিয়ে যাওয়ার অনুমতি ছিল ৮০%। কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত বাড়তে শুরু করায় এই শতাংশ নেমে দাঁড়ায় ৫০%-এ। ২৮ মে এই গাইডলাইন আসে। সোমবার, সরকার কতৃক আসা নয়া গাইডলাইনে বলা হয় যাত্রী সংখ্যা এখন ৫০% থেকে বেড়ে ৬৫% হবে।

গত বছর মার্চ মাসে সরকার করোনার জন্য ঘরোয়া এবং আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল বন্ধ করে দেয়। গতবছরই ২৫ মে আবার এই আবার এই বিমান চলাচল শুরু হলেও, এর যাত্রী ধারণ ক্ষমতা নেমে দাঁড়ায় ৩৩%। যেটি ধীরে ধীরে ডিসেম্বরে ৮০% পৌঁছায়। তারপরই আসে দ্বিতীয় ঢেউ।

বর্তমানে দ্বিতীয় ঢেউয়ের কিছুটা ক্ষমতা হ্রাস দেখা যাচ্ছে তাই সরকার কতৃক বিমানের ধারণ ক্ষমতা বাড়িয়ে ৫০% থেকে ৬৫% করা হল। সঙ্গে তৃতীয় ঢেউ আবার দরজায় উকি দিচ্ছে। তাই এই ৬৫% যাত্রী সংখ্যা ৩১ শে জুলাই পর্যন্তই প্রযোজ্য। তারপর আবার বিমান চলাচলে নয়া গাইডলাইন দেওয়া হবে।

করোনার তৃতীয় ঢেউ আসার সম্ভাবনা আগস্টের শেষ অথবা সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে। তখন কি আবার বিমান চলাচল বন্ধ থাকবে নাকি যাত্রী সংখ্যা আবার কমিয়ে দেওয়া হবে। এই প্রশ্ন থেকেই যায়।

ধীরাজ দাস :DNI

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে