দেবাঞ্জনের দেওয়া ভ্যাকসিনের সত্যতা কতটা? প্রকাশ্যে আনল সেরাম ইনস্টিটিউট

0
143



Priyanka Pal, DNI: সম্প্রতি ভুয়ো আইএএস অফিসার দেবাঞ্জন দেবের নাম প্রকাশ্যে এসেছে যিনি প্রায় ১০০০ জনকে কোভিশিল্ডের নামে ভুয়ো ভ্যাকসিন দিয়েছিল। অবশেষে কোভিশিল্ডের নির্মাতা সংস্থা সেরাম ইন্সটিটিউট লালবাজারকে নিশ্চিত করেছে যে, ওটা ভুয়ো ভ্যাকসিনই ছিল। কসবার ভুয়ো ক্যাম্প হোক বা কলেজের টিকাকরণ ক্যাম্প, সর্বত্রই ভুয়ো ভ্যাসকিন দিয়েছিল দেবাঞ্জন। তা এ দিন ১০০ শতাংশ নিশ্চিত হওয়া গিয়েছে।

কোভিশিল্ডের যে ভায়াল এবং স্টিকার-সহ অন্যান্য বস্তু মিলেছিল, তা পরীক্ষা করার জন্য পুনের সেরাম ইন্সটিটিউটে পাঠানো হয়। পরীক্ষা নিরীক্ষার পর সংশ্লিষ্ট সংস্থা জানিয়েছে, উদ্ধার হওয়া কিছুই তাদের নয়। অন্যদিকে, কলকাতা পুলিশের ফরেন্সিক বিভাগের পক্ষ থেকে প্রাথমিক তদন্তের পর জানানো হয়েছিল, কোভিশিল্ডের জাল স্টিকারের নীচে অ্যামিকাসিন ইঞ্জেকশন ছিল। যদিও সেরাম ইন্সটিটিউট এখনও সেই বিষয়টি নিয়ে নিশ্চিত নয়। পরীক্ষার পরই পরিষ্কার হবে আসলে দেবাঞ্জন কী প্রবেশ করিয়েছিল সাংসদ মিমি চক্রবর্তী-সহ এতগুলো মানুষের শরীরে।

কলকাতা পুরসভার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, কোনও ধরনের গুঁড়ো এবং জল মিশিয়ে ওই ভ্যাকসিন তৈরি করা হয়েছে। তবে পরে পুলিশের ফরেন্সিক বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়, কোভিশিল্ডের স্টিকার লাগিয়ে যে টিকাগুলি দেওয়া হয়েছিল তা আসলে ছিল অ্যামিকাসিন। কিন্তু সেরামের জবাব পাওয়ার পর সেই অ্যামিকাসিন ইঞ্জেকশন আসল ছিল না নকল, তা নিয়েও সংশয় দেখা দিতে শুরু করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে