“পশ্চিমবঙ্গই ভারতকে বাঁচাবে”: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

0
68
Local Train Service in Bengal: কবে চলবে লোকাল ট্রেন? জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

পশ্চিমবঙ্গই ভারতকে বাঁচাবে। বৃহস্পতি বার ভবানিপুর উপনির্বাচন কেন্দ্রে নির্বাচনী প্রচারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এইকথা বলেন। প্রচারে মমতা বিজেপির বিরুদ্ধে ভেদাভেদের রাজনীতির অভিযোগ করেন। তিনি বলেন বিজেপি রাজনীতির মধ্যে ধর্মকে ঢাল হিসাবে ব্যবহার করে, ভেদাভেদ তৈরি করে। অপর পক্ষে তৃণমূল কংগ্রেস কখনোই রাজনীতির সঙ্গে ধর্মকে যুক্ত করে না বলে তিনি দাবি করেন।

ভবানিপুর উপনির্বাচন কেন্দ্রে বিভিন্ন ধর্মের মানুষের বাস। সেকথা মাথায় রেখেই মমতা নির্বাচনী প্রচারে বিজেপিকে ‘ধর্মীয় অস্ত্রে’ বিঁধলেন বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের ধারণা। এই কেন্দ্রের গুজরাতি, জৈন এবং মারওয়ারী প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সপ্তাহের প্রথমে তিনি এই কেদ্রের মসজিদ এবং গুরুদ্বারেও গিয়েছিলেন।

মমতা বলেন, বিজেপির পক্ষ থেকে তাঁর মসজিদে যাওয়ার ঘটনাকে ব্যঙ্গ করে বিভিন্ন ছবি এবং ভিডিও বানানো হচ্ছে। “আমি গুরুদ্বারেও গেছি। আমি আমার বাড়িতে কালি পুজোও করি। তখনতো এদের(বিজেপি) কোনো রকম সমস্যা হয় না।” প্রচারে বলেন মমতা।

তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী এদিন বলেন নন্দীগ্রামেও বিজেপির পক্ষ থেকে এরকমই প্রচার করা হয়েছিল। বলা হয়েছিল, তৃণমূল কংগ্রেস জিতলে নন্দীগ্রাম পাকিস্তান হয়ে যাবে।

“হিন্দুস্তান কখনো পাকিস্তান হবে না। ভারতের শাসনভার কখনো তালিবানি মানসিকতার মানুষের ওপরে ছাড়া যায় না। হিন্দুস্তান ভবিষ্যতে আরো ভালো হিন্দুস্তান হবে। আর পশ্চিমবঙ্গই ভারতকে বাঁচাবে।”

মমতা আরো বলেন তৃণমূল কংগ্রেস কখনো বিভিন্ন ধর্মের মধ্যে ভেদাভেদ করে না। বিজেপিই ধর্মীয় ভেদাভেদের রাজনীতি করে ভারতের ধর্মীয় সংহতি নষ্ট করে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য 30শে সেপ্টেম্বর হতে চলা ভবানীপুর উপনির্বাচনে প্রধান দুই রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ হলেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রী পদে থাকতে গেলে এই উপনির্বাচনে জয় লাভ করতেই হবে। নির্বাচনের দিন যত এগিয়ে আসছে দুই পক্ষের চাপান উতোরও ততই বাড়ছে এবং এই ট্রেন্ডই জারি থাকবে বলে মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

News By Gourab DNI

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে