ভোট পরবর্তী হিংসার মামলায় NHRC-র রিপোর্টে অসঙ্গতি, দাবি উচ্চ আদালতের আইনজীবীর

0
39



Priyanka Pal, DNI: রাজ্যে ভোট পরবর্তী অশান্তির মামলায় NRHC- র রিপোর্ট ঘিরে উত্তাল রাজ্য রাজনীতি। কলকাতা হাইকোর্টে এই মামলার শুনানিতে রিপোর্টকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে অভিযোগ করেন রাজ্যের আইনজীবী। পাল্টা NHRC আইনজীবী বর্ধমান ও কোচবিহার তুফানগঞ্জের দুটি ঘটনা আদালতের সামনে রেখে জানান, অভিযোগকারীদের তথ্য প্রকাশিত হয়ে যাওয়ায় পুলিশ ও শাসক দলের তরফে ভয় দেখানো হয়। তারপর জাতীয় মানবধিকার কমিশনের কাছ থেকে অভিযোগই প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। যতদ্রুত সম্ভব রিপোর্টের ভিত্তিতে নিরপেক্ষ তদন্তকারী সংস্থার কাছে ভোট পরবর্তী অশান্তির তদন্তভার তুলে দেওয়া হোক।

বিচারপতি ইন্দ্র প্রসন্ন মুখার্জি এনএইচআরসি আইনজীবীর উদ্দেশ্যে বলেন, ভোট পরবর্তী অশান্তির আসল ঘটনা জানতে NHRC কে নিরপেক্ষ হয়ে অনুসন্ধান করতে বলা হয়। তারা অনুসন্ধান করে রিপোর্ট দিয়েছে। এবার তদন্তের কী হবে তা আদালতের বিচার্য বিষয়। পরে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতিও জানান, NHRC-র রিপোর্টের সব অংশ রাজ্য সহ অন্যান্য মামলাকারীদের দেওয়া হয়েছে। তবে যে অংশে ধর্ষনের ঘটনা এবং অভিযোগের বিবরণ আছে সেই অংশ কাউকে দেওয়া হয়নি। সেই অংশ না পাওয়া গেলে রাজ্য অবস্থান জানাতে পারবে না, জানান অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত। NHRC-র বক্তব্য এটা গোপনীয় বিষয় তাই দেওয়া হয়নি। অ্যাডভোকেট জেনারেলের কাছে বিচারপতি সুব্রত তালুকদার প্রশ্ন ছোঁড়েন, “আপনাদের কাজ অভিযোগ পেলে তদন্ত করা, নাকি NHRC যে রিপোর্ট দিয়েছে শুধুমাত্র তার ভিত্তিতে পদক্ষেপ করা আর তার উত্তর দেওয়া ?”

এইসময় রাজ্যের পক্ষে আইনজীবী অভিষেক মনু সিংভি’র সওয়াল, রিপোর্টে গাফিলতি আছে, ভোটের আগের ঘটনার উল্লেখও আছে। NHRC- র মত নিরপেক্ষ সংস্থার কাছে এটা কাম্য নয়। এটা রাজনৈতিক উদ্দশ্যপ্রণোদিত রিপোর্ট। পাল্টা সুর চড়িয়ে জনস্বার্থ মামলাকারীর আইনজীবী মহেশ জেঠমালানি রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার পরিস্থিতিকে গুজরাটের দাঙ্গার সাথে তুলনা করে। অবিলম্বে নিরপেক্ষ সংস্থা দিয়ে তদন্ত প্রয়োজন বলে জানান তিনি। ২৮ জুলাই মামলার পরবর্তী শুনানি ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল, বিচারপতি ইন্দ্রপ্রসন্ন মুখোপাধ্যায়, বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন, বিচারপতি সৌমেন সেন ও বিচারপতি সুব্রত তালুকদার বৃহত্তর বেঞ্চে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে