রাজ্যের বিপুল পরিমাণ টিকার ঘাটতি মেটাতে গ্লোবাল টেন্ডার ডাকছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার

0
99

রাজ্যে প্রতিনিয়তই বেড়ে চলেছে নয়া সংক্রমণের হার। অপরদিকে সুস্থদের জন্য মিলছে না পর্যাপ্ত পরিমাণে টিকা। জানা গেছে, কেন্দ্রের কাছে অসংখ্যবার প্রতিষেধক কেনার জন্য চিঠি লিখেছেন মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। তবে বিশেষ কিছু সুরাহা হয়নি বলেই সূত্রের খবর। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, সংক্রমণ থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় টিকাকরণ। যতবেশি সংখ্যক মানুষকে প্রতিষেধক এর আওতায় আনা যাবে, তত শীঘ্রই মিটবে সমস্যা। তবে প্রতিষেধকের অভাবের ফলে চিন্তার ভাঁজ পড়ছে রাজ্য সরকারের কপালে।

কেন্দ্রের প্রতিক্রিয়া না পেয়ে এবার ‘গ্লোবাল টেন্ডার’ ডেকেছে রাজ্য সরকার। গোটা বিশ্বে যত নামকরা প্রতিষেধক উৎপাদনকারী সংস্থা রয়েছে, তাদের থেকে টিকার জন্য সাহায্য চেয়েছে রাজ্য সরকার। সংস্থাগুলি কতসংখ্যক টিকা রাজ্যকে প্রদান করতে পারবে তা জেনে নিয়েই প্রতিষেধক কিনে নেবে রাজ্য সরকার। দু-একদিনের মধ্যেই গ্লোবাল টেন্ডার ডাকতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, প্রতিষেধক কিনতে এখন আর অর্থের অভাব নেই। ফলে রাজ্য প্রয়োজন মতো প্রতিষেধক কিনে নিতে প্রস্তুত।

প্রসঙ্গত, বিধানসভা নির্বাচনের পূর্ব থেকেই প্রতিষেধক নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে করা সুর তুলেছিলেন মাননীয়া মমতা ব্যানার্জি। তৃতীয় বার শপথ গ্রহণের পর থেকে সেই সুর আরও জোরালো হয়েছে বলেই জানা যাচ্ছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এমনও জানিয়েছেন, যেসব দেশে টিকা পাঠানো হয়েছে, সেখান থেকে টিকা এনে দেশের টিকা ঘাটতি মেটানো হোক। রাজ্যে এখন কার্যত লকডাউন। তবে সংক্রমণ রুখতে লকডাউন এর পাশাপাশি টিকাকরণও আবশ্যক জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। গ্লোবাল টেন্ডারের পর রাজ্যে কতটা সংক্রমণ কমবে তাই এখন দেখার বিষয়।

By Sukanya

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে