সম্ভবত জুলাইতেই ভারতে জনসনের টিকা, দামের পারদ চড়াও হবে কতটা?

0
61

অদিতি মুখার্জী : বিশ্বের নামীদামী সংস্থাগুলির ট্রায়ালে সাফল্য পেয়েছে অন্যতম জনসন অ্যান্ড জনসনের করোনা টিকা। সূত্র অনুযায়ী, আগামী মাস থেকেই ভারতে মিলতে পারে এই টিকা। টিকার পরিমাণ খুব কম সংখ্যকই হতে পারে এমনটাই অনুমান। প্রাথমিকভাবে কয়েক হাজার ডোজ টিকা মিলবে ভারতে। টিকার একটি ডোজের দাম হবে ২৫ ডলার যা ভারতীয় মূল্যে প্রায় ১,৮৭৫ টাকা।

এই ভ্যাকসিনের সুবিধা হল এটি সাধারণ তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করা সম্ভব। ভারতের মতো আরও অন্যান্য দেশের আবহাওয়ার জন্য এটি খুবই উপযোগী। টিকা গ্রহণের পর রক্তজমাট বাঁধার মতো শারীরিক অসুস্থতার অভিযোগ উঠেছে বিভিন্ন দেশে।

ফলস্বরুপ এর সুরক্ষা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন নাড়া চাড়া দিয়ে উঠছে। কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে ইতিমধ্যেই এ দেশে টিকার উৎপাদন প্রক্রিয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছে জনসন অ্যান্ড জনসন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বেঁধে দেওয়া নিয়মানুযায়ী, জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা কোভিডের বিরুদ্ধে ৬৬.৩ শতাংশ মাত্র কার্যকরী। গুরুতর সংক্রমণের আশঙ্কাও কমাত পারে এই টিকার মাধ্যমে। এই টিকাকরণের ২৮ দিন পর হাসপাতালে যাওয়ার ঝুঁকিও পুরোপুরি কমিয়ে দেওয়া সম্ভব বলে দাবি গবেষকদের।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে এই টিকায় অনুমোদন দিয়েছিল মার্কিন নিয়ন্ত্রক সংস্থা এফডিএ। তবে টিকা নেওয়ার পর গত বেশ কয়েকজনের শরীরে রক্ত জমাট বাঁধার সমস্যা দেখা দিয়েছে বলে অভিযোগ।

এ ছাড়া, আমেরিকার বাল্টিমোরের প্লান্টে উৎপাদিত লক্ষ লক্ষ টিকা ফেলে দেওয়ার জন্য চলতি মাসেই সংস্থাকে নির্দেশ দিয়েছিল এফডিএ। ওই টিকাগুলি দূষিত হয়ে গিয়েছিলবলে দাবি করা হয়। গত মাসে ব্রিটেনে এটি অনুমোদিত হলেও ডেল্টা প্রজাতির থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য এই টিকাকরণের পরেও বুস্টার ডোজ নেওয়ার প্রয়োজন বলে মনে করেন চিকিৎসকেরা। করোনার ডেল্টা বা ডেল্টা প্লাস প্রজাতির বিরুদ্ধে এই টিকা কতটা কার্যকরী, তা পরীক্ষা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে