১৭ বছর বয়সে অসাধ্য সাধন করলো বাংলার মেয়ে দিগন্তিকা

0
181

আরো একবার বাঙালি কন্যার হাতে এল বিশ্বজয়ের শিরোপা। যেই কাজ করতে গিয়ে হিমশিম খেতে হয় বড় বড় মানুষদের, সেই কাজকেই বুদ্ধির সাহায্যে সকলের সামনে তুলে ধরল বর্ধমানের মেয়ে দিগন্তিকা বসু। তৈরি হল ভাইরাস সংক্রমণ থেকে বাচার নতুন রাস্তা। দিগন্তিকার এই আবিষ্কার কে স্বীকৃতি দিয়েছে গুগল। শুধু তাই নয় তার আবিষ্কৃত মাস্কের গঠন স্থান পেয়েছে অনুপ্রেরণামূলক ডিজাইন বিভাগের সেরা দশের মধ্যে।

গুগল আর্ট ও কালচারের সংগ্রহশালায় একসময় দেশের বিভিন্নস্থানের আকর্ষণীয় ছবি এবং ভিডিও দেখতো দিগন্তিকা। আজ সেখানেই স্বর্নাক্ষরে জ্বলজ্বল করছে তার নাম। তার এই মাস্ক ধুলোবালি ও ভাইরাস থেকে প্রতিরোধের কাজ তো করবেই। কিন্তু এই মাস্কে থাকছে ইনহেলারও। যা বেশ নজর কেড়েছে সকলের। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, ভারতের বাজারে কত দ্রুত এই মাস্ক আনা যায় তারই এখন ব্যবস্থা চলছে।

ভাইরাস প্রতিরোধক মাক্সই তার একমাত্র আবিষ্কার নয়। ইতিমধ্যেই এগারটি উদ্ভাবনের জন্য অল্প বয়সেই পরিচিতি লাভ করেছে দিগন্তিকা। ১৫ বছর বয়স থেকেই সে গবেষণার পথে পথ চলা শুরু করে। ২০১০ সালে তার প্রথম আবিষ্কার নজর কাড়ে সকলের। ২০১৭ সালে এপিজে আবদুল কালাম ইউনাইটেড অ্যাওয়ার্ডে দিগন্তিকা কে সম্মানিত করেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। এরপর স্টার্ট আপ ইন্ডিয়া অ্যাওয়ার্ড, পঞ্চরত্ন ২০১৭ মেমারি মিউনিসিপ্যালিটির মতন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সম্মানিত করা হয় দিগন্তিকা কে। ভবিষ্যতের উজ্জ্বল দিগন্তিকা বই সব দিকেই এখন তাকিয়ে দেশবাসী।

By Sukanya

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে