২০২১-এ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী না হয়েও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে চাইছে আড়াই লাখ পরীক্ষার্থী

0
80

লিপিকা সরদার, DNI: রাজ্য তথা দেশ জুড়ে ভয়াবহ করোনার দাপটে মানুষ ভীত ও সন্ত্রস্ত। এরূপ পরিস্থিতিতে নিজের স্কুলে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা হওয়ার কথা সরকারিভাবে ঘোষণা করা হলেও পরে তা বাতিল করে দেওয়া হয়।

তারপর পর্ষদ থেকে ঘোষণা করা হয় মূল্যায়ন পদ্ধতি। এই পদ্ধতি অনুসারে মাধ্যমিকের ক্ষেত্রে নবম শ্রেণীর নম্বর এবং দশম শ্রেণীর অভ্যন্তরীণ মূল্যায়নের উপর বিচার করে নম্বর দেয়া হবে। পাশাপাশি উচ্চমাধ্যমিকের ক্ষেত্রে মাধ্যমিক, একাদশ শ্রেণী এবং দ্বাদশ শ্রেণীর অভ্যন্তরীণ মূল্যায়ন এর উপর ভিত্তি করে নম্বর দেয়া হবে।

পর্ষদ এর তরফ থেকে ১৮ জুন মূল্যায়নের পদ্ধতি ঘোষণা করা হলেও বিভিন্ন স্কুলে দেখা দেয় বিতর্ক। ২১ থেকে ২৪ জুনের মধ্যে প্রায় নয় লক্ষ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের নম্বর জমা পড়েছে। বাকি রয়েছে এখনো ২৪০০০ পরীক্ষার্থীর নম্বর জমা পড়া।

কিন্তু স্কুল থেকে পাঠানো নম্বরে রয়েছে প্রচুর গরমিল। বিশেষ করে মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে এই গরমিল দেখা দিয়েছে। পর্ষদের তথ্য সূত্র থেকে জানা যায় প্রায় আড়াই লাখেরও বেশি মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ফরম ফিলাপ করেনি। কিন্তু এইরূপ করোনা পরিস্থিতিতে তারা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে চাইছে।

রাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চলে স্কুলে অভিভাবকদের তরফ থেকে চলছে বিক্ষোভ এবং তারা স্কুলের উপর চাপ সৃষ্টি করছে নম্বর বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য। যদিও নম্বর গরমিলের জন্য কিছু কিছু স্কুল নিজেদের ভুল স্বীকার করেছে এবং তারা পুনরায় আবার নম্বর জমা দেওয়ার কথা জানিয়েছে। আবার কিছু কিছু স্কুল এই মূল্যায়ন পদ্ধতির জন্য সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন করেছে।

এরূপ বিক্ষোভ এবং নম্বরের গরমিল এর জন্য পর্ষদ থেকে জানানো হয়েছে , যদি পুনরায় এরকম হয় তাহলে তারা স্কুলের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে