বৈশাখের শেষে বর্ষার আমেজ ডেকে আনতে পারে রোগব্যাধি, কি করবেন জেনে নিন

0
74

একটানা বৃষ্টির পূর্বাভাস পূর্বেই দিয়েছিল আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। মঙ্গলবার দুপুর গড়াতেই আকাশ কালো করে নেমে আসে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি। হুগলি,কলকাতা,দুই মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জুড়ে বিক্ষিপ্ত ভাবে বৃষ্টি চলেছে সারাদিন। নিম্নচাপের ফলেই আবহাওয়ার এরূপ পরিবর্তন হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। সারাদিন বৃষ্টিপাতের ফলে শহরের একাধিক এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়ে। যার ফলে প্রচন্ড যান্ত্রিক সমস্যার মুখে পড়তে হয় শহরবাসীকে। এসএসকেএম হাসপাতাল চত্বরেও ঢুকে যায় জল। আগামী ২৪ ঘন্টায় উত্তরবঙ্গের কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, মালদা সহ বিভিন্ন এলাকাতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর শুক্র এবং শনিবার রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। আগামী পাঁচ দিন আবহাওয়ার কোনরূপ পরিবর্তন হবে না বলেই সূত্রের খবর।

তবে এই বৃষ্টির আমেজেও সতর্ক থাকতে বলেছেন বিশেষজ্ঞরা। তাপমাত্রা ও আদ্রতা পরিবর্তনের ফলে এইসময় পচন ধরে ফল এবং শাকসবজিতে। করোনা আবহে রোজ নিয়মিত বাজারে যাওয়া সম্ভব নয়। ফলে যত্ন নিতে হবে রেফ্রিজারেটরের। বাজার থেকে কিছু আনার পর তা অবশ্যই ধুয়ে,শুকিয়ে সেটিকে ফ্রিজে রাখতে হবে। করোনা আবহের মধ্যে ডেঙ্গু,ম্যালেরিয়া কথা ভুলে গেলে চলবে না। অতএব সেদিকেও লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন। আর এত কিছুর মাঝে মাস্ক এবং স্যানিটাইজার এর অভ্যাস কোনভাবেই ভুললে চলবেনা। সুতরাং আপনার সতর্কতা আপনার হাতে। মনোরম আবহাওয়াতেও পরিবারের যত্ন নিতে ভুলবেন না।

By Sukanya

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে