“শুভেন্দুকে কেনো গ্রেপ্তার করা হলো না?” প্রশ্ন তুললেন নারদ কর্তা ম্যাথু স্যামুয়েল

0
69

সোমবার সকালে কোনও নোটিশ ছাড়াই নারদা মামলায় গ্রেফাতার করা হয় রাজ্যের মন্ত্রী তথা পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্র, শোভন চট্টোপাধ্যায় ও সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে। আর এই গ্রেফতারির পর ম্যাথু জানান, “দীর্ঘ অপেক্ষার পর বিচার মিলেছে। আমি নিজে সেই স্টিং অপারেশন করেছিলাম। ২০১৬-তে সেটা পাবলিক ডোমেনে দিয়েছিলাম। অবশেষে ফল পেয়েছি। এটাই দুর্নীতির বিরুদ্ধে আসল লড়াই। আমি অপেক্ষা করতে তৈরি ছিলাম। অনেক সময় লেগে গেলেও বিচার মিলেছে।”

কিন্তু সব শেষে শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ম্যাথু স্যামুয়েল। তিনি বলেন, “শুভেন্দুর কী হল? শুভেন্দুও আমার কাছ থেকে টাকা নিয়েছিল। সেই ফুটেজও আমি সিবিআইয়ের হাতে তুলে দিয়েছি। বিচার সবার জন্য সমান হওয়া উচিত।” একই প্রশ্ন তুলেছেন তৃণমূলের নেতারাও। শুভেন্দু সাথে সাথে নাম উঠে এসে মুকুল রায়েরও। আইনজীবী কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘মুকুল রায়কে কেন গ্রেফতার করা হল না?’ রাজ্যপাল বিজেপির হয়ে কাজ করছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। নারদার স্টিং অপারেশনে তৎকালীন তৃণমূলের যেসকল হেভিওয়েট নেতাদের দেখা গিয়েছিল তাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী ও মুকুল রায়।

অন্যদিকে ফিরহাদ হাকিমের কন্যা প্রিয়দর্শিনী হাকিম টুইট করে বলেছেন, নির্বাচনের পরে মহামারী চলাকালীন বিধায়কদের গ্রেপ্তার করা মোদী সরকারের ষড়যন্ত্র ছাড়া কিছুই না। যেখানে কোভিডে হাজার হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে সেখানে স্পষ্টতই নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ কেবলমাত্র দ্বিতীয় তরঙ্গ মোকাবিলা করার দিকে মনোনিবেশ না করে মানুষকে গ্রেপ্তার করার জন্য কেবল ন্যায্য রাজনীতি করতেই আগ্রহী। কেন্দ্রীয় সরকার বিনা কারণই মানুষকে সমস্যায় ফেলে দিচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে