resignmodi-র বিপক্ষে বিজেপির ক্যাম্পেইনিংয়ে সত্যতা কতটা তা একবার পরখ করে নেওয়া যাক

0
114

বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের পর থেকেই কোভিড পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হয়ে পড়েছে। করোনার দ্বিতীয় ওয়েভের এই ভয়াবহতার জন্য দায়ী করা হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। এমনকি দ্য ল্যানসেট ও জানিয়েছে, মোদী সরকার করোনার সেকেন্ড ওয়েভের কথা জেনেও তার কোনো গুরুত্ব দেয়নি। এরই মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় #resignmodi নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। আর তার বিপক্ষেই বিজেপি একটি ক্যাম্পেইনিং শুরু করেছে মিডিয়ার মাধ্যমে। এবার এগুলির সত্যতা ঠিক কতটা তা দেখে নেওয়া যাক।

১. #resignmodi- র বিপক্ষে বিজেপি বলছে নরেন্দ্র মোদী ১৫ টি AIIMS তৈরি করেছে, কথাটি যথার্থ হলেও বেশ কয়েকটি নির্মাণের কাজ বিভিন্ন পর্যায়ে রয়ে গেছে।
২. দেশের অক্সিজেন, ওষুধপত্রের অভাব নাকি দূর করেছে, কিন্তু দেশের এই করোনা সংকটে এখনও অনেক মানুষ অক্সিজেনের অভাবে মারা যাচ্ছে। আর মাঝে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছিলেন কেন্দ্রীয় সরকার বাংলায় ভ্যাকসিনের যোগান না দিয়ে তা বাইরে রপ্তানি করছে। সুতরাং, এটা নিয়েও ধোঁয়াশা থেকে যাচ্ছে।
৩. মোদী নাকি ১০০-এর বেশি মেডিক্যাল কলেজ বানিয়েছে, ২০১৪ সাল থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে উন্নয়নের বিভিন্ন পর্যায়ে ১৫৭ টি মেডিক্যাল কলেজ রয়েছে। এছাড়াও দ্বিতীয় পর্যায়ে ৭৫ টি মেডিক্যাল কলেজ স্থাপনের কথা তুলেছে মোদী সরকার।
৪. কিছু মাসের মধ্যেই মোদী সরকার স্বদেশী করোনা ভ্যাকসিন এনেছে ঠিকই তবে ভ্যাকসিনের যথেষ্ট পরিমাণ ডোজ না থাকায় মানুষ সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে।
৫. গতবছর ডাক্তার, ফ্রন্টলাইন কর্মীদের কুর্নিশ জানিয়ে তাদের উদ্দেশ্যে তালি বাজিয়েছে যেটি নিয়ে প্রশ্ন থাকার কোনো কারণই নেই।
৬. করোনার শুরুতে মাস্ক বা পিপিই কিট নিয়ে যে টানাপোড়েন চলছিল তার সত্যিই অনেকটাই সমাধান করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।
৭. হেলথ বাজেটকে নাকি ২.২৩ লাখ কোটি টাকা করে দিয়েছে, যদি তাই দিয়ে থাকে দেশের স্বাস্থ্যব্যবস্থা কেনো ভেঙে পড়ল, কেন মানুষ চিকিৎসার অভবে, বেড আর অক্সিজেনের অভাবে মারা যাচ্ছে। সুতরাং বাজেট নিয়ে পর্যাপ্ত কোনো সিদ্ধান্ত নেই।
৮. করোনা সংকটে মোদী নাকি ১০০০ PSA প্ল্যান্ট বানানোর অর্ডার দিয়েছে, কিন্তু আদতে তার সংখ্যাটি হল ৫৫১। এর আগে বছরের শুরুতে আরও ১৬২ PSA প্ল্যান্ট বানানোর কথা তুলেছিল যার মধ্যে ৩৩টি এখনও ইন্সটল করা হয়েছে।

সুতরাং, স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে বিজেপির #resignmodi- র বিরুদ্ধে ক্যাম্পেইনিংয়ের তথ্যগুলি যথেষ্ট সন্দেহজনক যা মানুষকে প্রশ্নের মুখে দাঁড় করায়। কিছু তথ্য যেমন সত্য আবার কিছু তথ্য পুরোপুরি সত্যও নয়। কেনো বিজেপি এভাবে মানুষের মধ্যে ভুল ধারণা ঢুকিয়ে দিচ্ছে। আদতে কোনটা সত্য কোনটা মিথ্যা এবার আপানার যাচাই করে নেবার পালা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে