ঘূর্ণিঝড় যশ এর আগমনের পূর্বেই জারি করা হলো সতর্কবার্তা

0
32

বাংলা সহ পার্শ্ববর্তী এলাকা গুলির উপর আছড়ে পড়তে পারে ঘূর্ণিঝড় যশ। হাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর বঙ্গোপসাগরের উপর নিম্নচাপের সৃষ্টি হচ্ছে, যা পরবর্তী সময়ে ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নেবে। যার প্রভাব পড়তে পারে বাংলা সহ মেঘালয়, আসাম, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ এবং উড়িষ্যার উপর। তবে কি আমফানের মতো ভয়াবহ রূপ ধারণ করতে পারে ঘূর্ণিঝড় যশ? এই নিয়ে অবশ্য বিশেষ কিছু জানানো হয়নি বলেই সূত্রের খবর। ঝড়ের গতিবেগ, বৃষ্টিপাতের পরিমাণ এবং সমুদ্র সৈকতের পরিস্থিতি সম্পর্কে বেশ কিছু সচেতনতা জানানো হয়েছে প্রশাসনের তরফ।

ঝড়ের গতিবেগ :
প্রথমদিকে ঝড়ের গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার থাকতে পারে বলেই অনুমান করা হচ্ছে। ওড়িশি গতিবেগ ঘন্টায় ৬০ থেকে ৬৫ কিলোমিটারও হতে পারে বলে অনুমান।
বৃষ্টিপাতের পরিমাণ :
অনুমান করা হচ্ছে, ২২ এবং ২৩ শে মে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। উড়িষ্যা এবং বাংলার বেশ কিছু এলাকা থেকে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ২৫ থেকে ২৬ শে মে এর মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে পারে বলেই অনুমান করা হয়েছে।
সমুদ্র সৈকতের পরিস্থিতি :
২১ শে মে থেকেই বঙ্গোপসাগর এবং দক্ষিণ আন্দামান সাগরের উত্তাল ঢেউয়ের সৃষ্টি হতে পারে।

অতএব সমস্ত রকম পরিস্থিতির জন্য রাজ্য প্রশাসন গুলিকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যত কম সংখ্যক ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়তে হয় রাজ্যগুলিকে। সমুদ্র সৈকত এর আশেপাশে যাতে বিপুল সংখ্যক জনবসতি না থাকে সে বিষয়েও লক্ষ্য রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

By Sukanya

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে