করোনা প্রতিরোধে বেহালা পশ্চিমের বিধায়ক ড. পার্থ চ্যাটার্জীর নয়া উদ্যোগ

0
285

বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলে বেহালা পশ্চিম থেকে প্রায় ৫০ হাজার ভোটে জয়লাভ করেছেন মাননীয় ড. পার্থ চট্টোপাধ্যায় মহাশয়। এরপরই দফতর বণ্টনের পর দেখা যায় শিক্ষা থেকে ফের শিল্প দফতরে ফিরেছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। শিক্ষামন্ত্রীর পদে ৭ বছর বহাল থাকলেও তাকে বর্তমানে শিল্প, বাণিজ্য, তথ্যপ্রযুক্তি তথা পরিষদীয় মন্ত্রীত্ব পদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে তিনি মন্ত্রী হিসেবে কাজ করার থেকে এখন করোনা মোকাবিলায় বিধায়ক হিসেবে বেহালার মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। যেহেতু বেহালা ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে তাই সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় তার নিজের প্রচেষ্টায় পর্ণশ্রীতে বানানো বেহালা সরকারি পলিটেকনিক কলেজকে করোনা প্রতিরোধের সেফ হোম হিসেবে চালু করেছেন। আজ বিকেল তিনটে নাগাদ তার উদ্বোধন করলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায় নিজে। সেখানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পৌর কমিশনার সুনিল কুমার, বেহালা পূর্বের বিধায়ক রত্না চ্যাটার্জী ও বেহালার সকল পৌর কো-অর্ডিনেটর বৃন্দ। উদ্বোধনের সাথে সাথেই বহু মানুষের আবেদন ইতিমধ্যে জমা পড়তে শুরু করেছে।



বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী হিসেবে তিনি সামগ্রিক বেহালার উন্নয়নে সামিল হয়ে রয়েছেন বিগত বহু সময় ধরেই। স্থানীয় প্রশাসনকে সঙ্গে করে এলাকার রাস্তাঘাটের উন্নয়ন থেকে বেহালার পানীয় জল এবং নিকাশির সমস্যার সমাধানে তিনি সর্বদা তার কৃতিত্বের পরিচয় দিয়ে এসেছেন। পড়ুয়াদের জন্য ইংরেজি মাধ্যম স্কুল, কন্যাশ্রী কলেজ থেকে শিক্ষক প্রশিক্ষণের কলেজও গড়ে উঠছে আজ বেহালায়। এছাড়াও নানারকম নাগরিক পরিষেবা মূলক কাজের মাধ্যম মানুষের পাশে থেকে বেহালার উন্নয়নকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন এক অন্যতম স্থানে যার জন্যেই হয়তো বেহালাবাসী বলে থাকেন “পার্থ দা কেই চাই”।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে