ArunachalPradesh: আরো একটি নতুন গ্রাম চীনের, উপগ্রহ চিত্রে উদ্বেগ।

0
21

ভারতীয় ভূখণ্ডে নতুন গ্রাম বানিয়ে ফেলেছে চীন।
নতুন উপগ্রহ চিত্র রীতিমত উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে ভারতের সুরক্ষার ক্ষেত্রে। এই উপগ্রহ চিত্রে দেখা গেছে যে অরুনাচল প্রদেশের ভেতরে বেশ কিছুটা জায়গা জুড়ে একটা গ্রাম বানিয়েছে চীন। গ্রামটিতে কম করে হলেও 60 টি বাড়ি রয়েছে। শুধু বাড়িই নয়, এই গ্রামে রাস্তাও বানিয়েছে চীন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য বহুদিন ধরেই চীনের বিরুদ্ধে নিজেদের সীমানা অতিক্রম করে ভারতের ভূখণ্ডে ঢুকে পড়ার অভিযোগ করে আসছে নতুন দিল্লী। সেই তালিকায় নতুন সংযোজন হল এই নতুন উপগ্রহ চিত্রগুলি। 2019 এর উপগ্রহ চিত্রে এই এলাকায় কোনো রকম নির্মাণের চিহ্ন পাওয়া যায় নি। কিন্তু 1 বছর পরে এই চিত্রে দেখা যাচ্ছে আন্তর্জাতিক সীমান্তের 93 কিলোমিটার পূর্বে অরুনাচল প্রদেশের ভিতরে পুরোদস্তুর গ্রাম বানিয়ে ফেলেছে চীন। কিছুদিন আগেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র পেন্টাগন মারফত একই কথা জানিয়েছে।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে নতুন দিল্লী। ভারত কোনো ভাবেই তাদের এলাকায় চীনের অনুপ্রবেশ বরদাস্ত করবে না বলে স্পষ্ট জানানো হয়েছে বিদেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে।

বিগত কয়েক দশক ধরেই আন্তর্জাতিক সীমান্ত এবং প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর নির্মাণ কার্য করতে দেখা গেছে চীনকে। প্রতিবারই তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ভারত, কিন্তু তথাপি তাদের কার্যকলাপ থামায়নি ‘লাল ড্রাগন’। উল্লেখ্য, গত 2017 তে ডোকালামে ভারত এবং চীন সেনাবাহিনী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। একই ঘটনা ঘটে লাদাখে গত বছর, যেখানে দুই পক্ষেরই বেশ কয়েকজন সেনার হতাহতের খবর পাওয়া যায়। কিন্তু তারপরেও চীনের ‘এক্সপ্যান্ডেবল’ নীতির কোনো রকম পরিবর্তন হয়নি বলেই অভিমত আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞদের।

নতুন উপগ্রহ চিত্রে দেখা গেছে আন্তর্জাতিক সীমান্ত এবং লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল (এল এ সি) – এর প্রায় 6 কিলোমিটার ভিতরে চীন তাদের দ্বিতীয় গ্রামটি বানিয়েছে। এই এলাকা বরাবরই নিজেদের বলে দাবি করে এসেছে ভারত। যদিও এই ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় ভারতীয় সেনা বাহিনী জানিয়েছে, গ্রামটি তৈরি হয়েছে লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের উত্তর দিকে। অর্থাৎ চীনের কব্জায় থাকা ভারতীয় ভূখণ্ডে।

তবে গোটা ঘটনায় চীনের প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তারা ঐ এলাকা নিজেদের ভূখণ্ড বলেই দাবি করেছে। জুলাই মাসে চীনের নিউজ এজেন্সি জিনহুয়া তে এই গ্রামের ছবি দিয়ে একটি বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। সেই সময়ে চীনের রাষ্ট্রপতি জি জিনপিং ঐ গ্রামে এসেছিলেন।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞদের মতে এই গ্রাম তৈরি করার মাধ্যমেই চীন আস্তে আস্তে ভারতীয় ভূখণ্ড নিজেদের দখলে নিয়ে নিচ্ছে যেটা তাদের বিস্তারবাদ বা এক্সপ্যান্ডেবল নীতিকে প্রকাশ করে। দীর্ঘদিন ধরেই চীনের ওপরে বিভিন্ন দেশ এই দোষারোপ করে এসেছে। কিন্তু তাতে তাদের এই নীতির বিন্দু মাত্র পরিবর্তন হয়নি। যার সাম্প্রতিকতম উদাহরণ হল এই গ্রাম। এর পরিপ্রেক্ষিতে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে কি পদক্ষেপ নেওয়া হয়, সেটাই দেখার।

News By Gourab

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে