Bhawanipore: শান্তিপূর্ণভাবেই শেষ ভবানীপুর যুদ্ধ

0
96

সকাল থেকে শান্তিপূর্ণভাবেই ভোটগ্রহণ চলছে ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রে। তবে বিরোধীদের অভিযোগ এলগিন রোডে বুথে ভুয় ভোটার কে দেখা গেছে।তারমধ্যে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের অশনিসংকেত রয়েছে। তাই যথাযথ কোভিদ বিধি মেনেই চলছে ভোট গ্রহণ পর্ব। এরইমধ্যে ভোটগ্রহনের তদারকি করতে বুথ পরিদর্শনে এলেন তৃণমূল প্রার্থী মমতা bondhopadhyayer বিপরীতে থাকা বিজেপির প্রার্থী তথা আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল। কারণ আগে নির্বাচন চলাকালীন বারে বারে উঠে এসেছে বিক্ষিপ্ত অশান্তির অভিযোগ । তাই সুষ্ঠু নির্বাচন হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে তার এই উপস্থিতি বলে জানা যাচ্ছে। পাশাপাশি নির্বাচন কমিশনের হিসেব অনুযায়ী, দুপুর 1 টা পর্যন্ত পর্যন্ত ভবানীপুর কেন্দ্রে ভোট পড়েছে 35.97 শতাংশ। শহরতলীর বিভিন্ন অংশে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির কারণেই ভোটের হার বেশ কম বলে দাবি করেছেন তৃণমূল নেতারা। কিন্তু দুপুর গড়াতেই আবহাওয়ার উন্নতি হওয়ায় ভোটের হার ক্রমশ বাড়বে বলে আশাবাদী তৃণমূল নেতারা। পাশাপাশি আশ্চর্যজনকভাবেই বিজেপির তেমন কোন ক্যাম্প ধরা পরল না ডেলি নিউজ ইন্ডিয়ার ক্যামেরায়। তা নিয়ে তৈরি হয়েছে চাপানউতোর।

প্রসঙ্গত, ২ মে প্রকাশিত হয় পশ্চিমবঙ্গের সপ্তদশ বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল। একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে শাসনকার্য পরিচালনা দায়ভার নেয় তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু নন্দীগ্রামের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীরূপে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরাজিত হন নন্দীগ্রামের বর্তমান বিজেপি বিধায়ক তথা বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর কাছে। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে অস্থায়ীরূপে শপথ গ্রহণ করলেও প্রথাগত নিয়ম অনুযায়ী ছয় মাসের মধ্যে কোন একটি বিধানসভা থেকে তাকে জয়ী প্রার্থী রূপে নির্বাচিত হতে হবে। তবেই পাঁচ বছরের জন্য তার আসন হবে পাকা। তিনি ঘরের মাঠ কেই বেছে নিলেন লড়াইয়ের ময়দানে রূপে। আর আজ সেই সন্ধিক্ষণ। একে একে ভোট দিচ্ছেন হেভিওয়েট নেতা থেকে শুরু করে সাধারণ জনগণ। ভোট দিতে দেখা গেল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাই বুবুন বন্দ্যোপাধ্যায় কে ও। এখন অপেক্ষা বল এবার কার কোর্টে যায়।

বাংলা তার মেয়েকে চায়, এই স্লোগান ধরেই একে একে নির্বাচনী প্রচার চালিয়ে ছিল তৃণমূল কংগ্রেস। সম্পন্ন হয়েছে 21 এর বিধানসভা নির্বাচন। কিন্তু ২ মে ফল ঘোষণার পর থেকেই একটা চাপা উত্তেজনা কাজ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস দলের মধ্যে। সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে দল স্থাপন করলেও মাথায় ছিল মুখ্যমন্ত্রী রূপে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আসন স্থায়ীকরণের চাপ। সংকুল আবহাওয়ার মধ্যেও নির্বাচনী প্রচার করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তার দলীয় কর্মকর্তারা। ৩০ সেপ্টেম্বর সেই ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রের উপ নির্বাচনে অংশ নিলেন হেভিওয়েট নেতা মন্ত্রীরা। এমনই ছবি ধরা পরল ডেলি নিউজ ইন্ডিয়ার ক্যামেরায়। বেলা গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গেই দেখা গেল বাংলার মেয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ভোট দিয়ে বুথ থেকে বেরোতে। পাশাপাশি মিত্র ইনস্টিটিউটে ভোট দিলেন যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, চেতলার এক বুথে সাদা পাঞ্জাবি ও চোস্তায় ভোট দিতে দেখা গেল মন্ত্রী ফিরাদ হাকিমকে। উপনির্বাচনের ওপর নির্ভর করছে পশ্চিমবঙ্গের আগামী মুখ্যমন্ত্রী কে মমতা ব্যানার্জি নাকি অন্য কেউ?

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে