CPIM: কেন তিনদিনের ম্যারাথন বৈঠকের সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়!

0
27
CPIM: কেন তিনদিনের ম্যারাথন বৈঠকের সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়!



Ritika Roy, DNI: সংযুক্ত মোর্চা গঠন নিয়ে দলের রাজ্য কমিটির বৈঠকে প্রশ্ন উঠেছিল। বিমান বসু, মহম্মদ সেলিমদের কাঠগড়ায় তুলেছিলেন রাজ্য কমিটির সদস্যরা। মোর্চা গঠন সঠিক ভাবে হয়নি বলেছিলেন বাম শরিকরাও। সূত্রের খবর, এবার রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে মোর্চা গঠনের ফর্মুলা নিয়ে ভিন রাজ্যের প্রতিনিধিদের নিশানায় পশ্চিমবঙ্গের সিপিএম নেতৃত্ব। ওই প্রতিনিধিদের দাবি, পার্টি কংগ্রেসের গৃহীত নীতি মানা হয়নি। পাল্টা পশ্চিমবঙ্গ থেকে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য থাকা রামচন্দ্র ডোম, আভাস রায় চৌধুরী, রবিন দেবরা যুক্তি দেন, অসাম্প্রদায়িক সমস্ত দলকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে। পার্টি কংগ্রেসের এটাই ছিল সিদ্ধান্ত। সেই পথেই জোট হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে।

কেন্দ্রীয় কমিটিতে থাকা দক্ষিণী রাজ্যগুলির প্রতিনিধিরা অনেকে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট কেন করা হল তা জানতে চান। সঙ্গে এমনটাও বলেন, ওই জোটের জন্য পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা বামহীন হয়েছে। একজনও সিপিএমের প্রতিনিধি নেই সেখানে। দক্ষিণের কেরল এলডিএফ ক্ষমতায় ফিরেছে। যা ঐতিহাসিক বলে দাবি সিপিএমের একাংশের। তামিলনাড়ুতে লোকসভার পরে বিধানসভাতেও ভাল ফল হয়েছে বামেদের। অথচ বাংলায় মুখ থুবড়ে পড়েছে সংগঠন। ২০১৮ সালে পার্টি কংগ্রেসে বলা হয়েছিল, বিজেপির বিরুদ্ধে সব ধর্মনিরপেক্ষ শক্তিকে এক করে লড়াই করতে হবে। আর সেই অনুসারেই কংগ্রেসকে সঙ্গী করে নির্বাচনী লড়াইয়ে নামা হয়েছিল। কিন্তু ফল খারাপ হওয়ায় কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে এ রাজ্যের প্রতিনিধিদের এই সমস্ত যুক্তি টেকেনি বলেই সূত্রের খবর।

বাংলায় কী ভাবে মোর্চা গঠন করা উচিৎ ছিল তা নিয়েও কথা বলেন ভিন রাজ্যের নেতারা। জানান, বৃহত্তর বাম ঐক্য শক্তিকে একজোট করাই উদ্দেশ্য থাকা উচিত ছিল। সেই ভাবনা কাজ করেনি বলে সূর্যকান্ত মিশ্র, মহম্মদ সেলিমদের নিশানা করেন তাঁরা। শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক। শনিবার তার দ্বিতীয় দিন। তিনদিনের এই বৈঠক শেষ হবে রবিবার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে