Crime news:মনোহর পুকুরে স্ত্রী ও আঠারো বছরের মেয়েকে কুপিয়ে ১০০ ডায়াল স্বামীর। ঘটনার তদন্তে লালবাজার।

0
51

খাস কলকাতায় শনিবার সন্ধ্যেবেলা স্ত্রী ও আঠারো বছরের মেয়েকে কুপিয়ে নিজেই ১০০ ডায়াল করে সমস্ত ঘটনা জানান অভিযুক্ত স্বামী। ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছে রক্তাক্ত অবস্থায় স্ত্রী মেয়েকে উদ্ধার করে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা স্ত্রীকে মৃত বলে ঘোষণা করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসা চলছে মেয়ের। পারিবারিক বিবাদের জেরেই এই খুন বলে প্রাথমিক অনুমান পুলিশের।

পুলিশ সূত্রে খবর, মৃতার নাম প্রিয়াঙ্কা বাজাজ (৪৫)। অভিযুক্ত স্বামী বছর ৪৭ এর অরবিন্দ বাজাজ ৩৩/সি মনোহরপুকুর রোডের পুষ্পক নামক আবাসনের চার তলায় স্ত্রী মেয়েকে নিয়ে থাকতেন। প্রিয়াঙ্কার বাবার সিমেন্টের ব্যবসা সেখানেই কাজ করতেন অরবিন্দ।২ বছর আগে কাজ চলে যায় তার।তারপর বহুদিন বেকার থাকার পর কিছুদিন আগে এক আয়ুর্বেদিক পন্য সংস্থার ফ্র্যাঞ্চাইজি নেয় অরবিন্দ।সে ব্যবসাও ভালো চলছিল না তার নিত্যদিন ঘরে স্ত্রীর সঙ্গে অশান্তি লেগে থাকত। বেকারত্ব ও পারিবারিক অশান্তির জেরে অরবিন্দ মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন বলে প্রাথমিক অনুমান পুলিশের।

পুলিশ সূত্রে খবর শনিবার রাত ন’টা নাগাদ ১০০ তে ফোন করে অরবিন্দ। ফোনে স্ত্রী ও মেয়েকে খুনের কথা জানিয়ে বাড়ির ঠিকানাও জানায় সে। ফোন পেয়েই ঘটনাস্থলে যান রবীন্দ্র সরোবর থানার পুলিশ। ফ্ল্যাটে ঢুকে পুলিশ দেখেন ঘরের এক কোনে চেয়ারে বসে আছে অরবিন্দ পাশে রাখা রক্তমাখা ছুড়ি। রক্তে ভেসে যাচ্ছে ঘর, পাশাপাশি দেহ পরে স্ত্রী প্রিয়াঙ্কা ও তাদের আঠারো বছরের মেয়ের।পুলিশ দেহদুটি উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায় ও গ্রেফতার করা হয় অরবিন্দকে।

স্থানীয়রা জানান, এইদিন সন্ধ্যেবেলাও স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়ার আওয়াজ পেয়েছিলেন তারা। এই ঝগড়ার সময়ই হয়ত স্ত্রীকে অরবিন্দ খুন করে বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা। রাতেই ঘটনাস্থলে পৌঁছায় লালবাজারের হোমিসাইড শাখার গোয়েন্দারা। অরবিন্দকে জেরা করে খুনের আসল কারন জানতে চাইছে তদন্তকারীরা।

News By Tania

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে