Kolkata Case: ভুয়ো বিজ্ঞাপন, কিডনি পাচার চক্রের পর্দা ফাঁস পুলিশের

0
32



Ritika Roy, DNI: খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন দিয়ে কিডনি কেনার নামে প্রতারণার অভিযোগ। খাস কলকাতায় পর্দাফাঁস কিডনি পাচার চক্রের। প্রতারিত অরূপ দে-র অভিযোগ, তাঁর কাছ থেকে কিডনি নিয়ে দেওয়া হয়নি টাকা। এ নিয়ে লালবাজারে অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি।

খবরের কাগজের বিজ্ঞাপন থেকে তিনি জেনেছিলেন, কিডনি বিক্রি করলে পাওয়া যাবে ৩ লক্ষ টাকা। টাকার প্রয়োজনে কিডনি বিক্রি করতে রাজি হয়ে গিয়েছিলেন অরূপ দে। তবে তাঁর অভিযোগ, অস্ত্রোপচার করে তাঁর কিডনি নেওয়ার পর টাকা দেওয়া হয়নি। যে নম্বর থেকে ফোন করা হয়েছিল, সেটাও তারপর থেকে বন্ধ ছিল।

প্রায় ২০ বছর পর ফের খবরের কাগজে একই ধরনের বিজ্ঞাপন এবং একই নম্বর দেখে ফোন করেন অরূপ। জানতে পারেন একই ভাবে কিডনি কেনাবেচার নামে চলছে প্রতারণা। এ নিয়ে অভিযুক্ত রণবীর রজক এবং নীতিশ গুপ্তার নামে তিনি লালবাজারে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অরূপের বয়ান অনুযায়ী, ২০০০-২০০১ সালে তিনি আর্থিক অনটনের জন্য পেপারে বিজ্ঞাপন দেখে কিডনি দেন। কিন্তু ৩ লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা বলা হলেও তাঁকে নীতীশ গুপ্ত কোনও টাকা দেননি। উল্টে ফোন নম্বর বন্ধ করে দেয়।

সম্প্রতি অন্য পেপার এ একই ফোন নম্বর দেখে ফের কিডনি দেবেন বলে বাইপাসের এক বেসরকারি হাসপাতালে যান। তার আগে আনন্দপুর থানাকে জানিয়ে গেলেও পুলিশ কোনও সাহায্য করেনি। লিখিত অভিযোগেও সাহায্য না পেয়ে লালবাজারর দারস্থ হন অরূপ দে।

এদিকে, অভিযুক্ত রণবীর রজক বলেন, একটি বিজ্ঞাপন দেখে টেলিকলারের কাজে যোগ দেন। সেই কাজটাও নীতিশ গুপ্ত দেন। এরপর বিজ্ঞাপন দেখে অরূপ দে তাঁকে ফোন করেন। তিনি কিডনি দেবেন বলেন। রণবীর নিজেও দাবি করেন, তিনিও ২০১৩ সালে তিন লক্ষ টাকার বিনিময়ে কিডনি দেন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে