ফের বাস বন্ধের নোটিস! এইসকল বাসরুটে যাতায়াতকারীদের মাথায় হাত বছর শুরুতেই

0
146

কোভিডের জেরে মিলছে না দূরপাল্লার বাসের যাত্রী৷ ফলে উত্তরবঙ্গগামী একাধিক রুটের বাসের সংখ্যা কমিয়ে দিল উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগম। একই সাথে যাত্রী না হওয়ার কারণে উত্তরবঙ্গগামী ট্রেনের সংখ্যাও কমিয়ে দিল পূর্ব রেল। উত্তরবঙ্গগামী রকেট, এসি ও ভলভো বাসের সংখ্যা কমানো হল। আগে প্রতিদিন শিলিগুড়ি, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, বালুরঘাট, মালদা, রায়গঞ্জ রুটে ৬৫টি বাস চালাত এনবিএসটিসি। এর মধ্যে থেকে ২০টি বাসের সংখ্যা কমিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আজ, বুধবার থেকে আরও ১০টি বাস কম চালাতে চলেছে পরিবহন নিগম। এর মধ্যে নাইট স্পেশাল পরিষেবাও আছে। শিলিগুড়ি রুটের ৬টি, কোচবিহার রুটের ৪টি, আলিপুরদুয়ার রুটের ৪’টি, মালদা, বালুরঘাট ও রায়গঞ্জ রুটের ২’টি করে বাস কমানো হয়েছে।

Advertisement

এনবিএসটিসি’র কলকাতা ডিপোর ইনচার্জ অনিল অধিকারী জানিয়েছেন, “রকেটে ৪০ আসন থাকে। যাত্রী হচ্ছে সবচেয়ে বেশি ১২ জন। এসি ও ভলভো বাসের আসন সংখ্যা ৫০ করে থাকে। যাত্রী হচ্ছে সর্বাধিক ২০ জন করে। ফলে এত কম যাত্রী নিয়ে বাস চালাতে গিয়ে জ্বালানির খরচ ও যন্ত্রাংশের খরচ উঠছে না। ফলে বাস চালানো কার্যত অসম্ভব হয়ে উঠেছে।”

এরই মধ্যে উত্তরবঙ্গগামী একাধিক বেসরকারি রুটের বাস বন্ধ হয়েছে। বিশেষ করে শিলিগুড়ি রুটে ভলভো কমেছে। বাকি রুটের বাসের সংখ্যা দিনে ৩০ থেকে কমে ৪ বা ৫ করে দেওয়া হয়েছে। তাঁদের কথায়, “যাত্রীও খুব একটা হচ্ছে না। জ্বালানির দাম এতটাই বেশি হয়েছে যে ভাড়া না বাড়িয়ে আর উপায় ছিল না। তবে যাত্রী হচ্ছিল। কিন্তু কোভিডের জন্যে সেটাও হচ্ছে না।”

তবে সরকারি এসি বাসের সমস্ত রুটের ভাড়াই অপরিবর্তিত রয়েছে। গণপরিবহন এখনও সম্পূর্ণ স্বাভাবিক নয়। জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির কারণে বেসরকারি বাস মালিকরা সরকারের কাছে ভাড়া বৃদ্ধির প্রস্তাব দিলেও সরকার এখনই ভাড়া বাড়ানোর ব্যাপারে রাজি নয়। যদিও বেসরকারি বাস পরিষেবার অনেক ক্ষেত্রেই যাত্রীরা নির্দিষ্ট ভাড়া থেকে বেশি নেওয়ার অভিযোগ করছেন। তবে যে সব যাত্রী অগ্রিম টিকিট বুকিং করেছেন তাদের গন্তব্যে ফেরানোর ব্যবস্থা করছে সরকার। অনিলবাবু জানিয়েছেন, “অন্যান্য সময়ের বাসে আমরা যাত্রীদের আসন করে দিচ্ছি।”

এদিকে ইতিমধ্যেই হাওড়া থেকে নিউ জলপাইগুড়ি স্পেশাল ট্রেন বন্ধ করা হল। একইসাথে শিয়ালদহ থেকে নিউ জলপাইগুড়ি স্পেশাল ট্রেনও বন্ধ করা হল। পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক একলব্য চক্রবর্তী জানিয়েছেন, “যাত্রী হচ্ছে না। ট্রেন চালানোর মত অবস্থা নেই। তাই আগামী ১২ ও ১৩ তারিখ থেকে এই দুটি ট্রেন আপাতত স্থগিত থাকবে।”

Advertisement

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে