Uttarpradesh:ব্যবসায়ীর রহস্য মৃত্যুতে নতুন তথ্য।ময়না তদন্তের রিপোর্টে প্রমাণ মারধরের ফলেই মৃত্যু।

0
82

ইউপি-র ব্যবসায়ী খুনে ময়না তদন্তের রিপোর্টে উঠে আসছে নতুন তথ্য। ১৫ ঘন্টা পর দেহের ময়না তদন্ত হয়। সেই রিপর্টে বলা হয়েছে ব্যবসায়ীর মাথার মাঝখান ফুলে গিয়েছিল। কনুইতে ছিল কাটা দাগ, চোখে ও ঠোঁটের উপরেও ছিল আঘাতের চিহ্ন। চিকিৎসকরা স্পষ্ট জানান মারধরের জন্যই কোমায় চলে যান ব্যবসায়ী তারপরেই মৃত্যু হয় তার। ঘটনায় ৬ জন পুলিশ কর্মীকে সাসপেন্ড করা হয়।

সোমবার ৩৬ বছরের কানপুর ব্যবসায়ী মনীশ গুপ্তা তার দুজন সঙ্গীর সাথে গোরাখপুরে গিয়েছিলেন তাদের জমি-বাড়ির ব্যবসার এক অংশীদারের সঙ্গে দেখা করতে। পরিবারের অভিযোগ তারা যে হোটেল রুমে ছিলেন সেখানে মাঝরাতে ইনসপেক্টর সহ ৬ জন পুলিশকর্মী রেইড করেন। তাদের রাতে হোটেলে ওঠার কারন নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন ওই পুলিশরা। মাঝরাতে হঠাৎ এই তল্লাশির কারণ মনীশ জানতে চাইলে তাকে বেধরক মারধর শুরু করে ওই ৬ জন পুলিশ কর্মী। মারের কারণে মনীশ গুরুতর আহত হওয়ার পরও তাকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে দেরী করেণ ওই পুলিশ কর্মীরা। কিন্তু পুলিশ প্রথমে সমস্ত অভিযোগই উড়িয়ে দেন তারা বলেন পরে গিয়ে আঘাত পেয়েছেন মনীশ।

ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে ছয় জন পুলিশ কর্মীকে সাসপেন্ড করা হয়। যদিও এই ঘটনায় মৃত্যের স্ত্রী ৬ জন পুলিশ কর্মীর বিরুদ্ধেই অভিযোগ জানালেও FIR-এ মাত্র তিন জন পুলিশের নাম রয়েছে। বাকী তিন জনের নাম এফআইআরে কেন নেই সেবিষয়ে কোন সুস্পষ্ট কিছু জানায় নি গোরাখপুর থানার পুলিশ। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও ভাইরাল হয় গুপ্তা পরিবারের সাথে জেলাশাসক বিজয় কিরণ আনন্দ ও পুলিশ প্রধান ভিপিন টাডা মিটিং-এর। ভিডিওটি পরিবারের কোন সদস্য করেন। যেখানে দেখা যাচ্ছে জেলাশাসক গুপ্তা পরিবারকে বলছেন “ একটা কোর্ট কেস শেষ হতে অনেক বছর সময় লাগে। আমি বড় ভাইয়ের মতো অনুরোধ করছি, একবার কোর্ট কেস হয়ে গেলে আপনি বিশ্বাস করবে না, কত বছর লেগে যাবে কোর্টে”। এমন সময়ই শোনা যায় মাঝখান দিয়ে পুলিশ প্রধান টাডা বলছেন “ ওদের (পুলিশদের) পুরনো কোন শত্রুতা ছিল না। তারা অন ডিউটিতে ছিল বলে আমি সকাল থেকে আপনার কথা শুনছি। আপনি ওদের সাসপেন্ড করতে বলেছেন আমি করেছি। তারা আবার চাকরিতে বহাল হবে না যতদিন না তারা ক্লিনচিট পাচ্ছে”। তখন এক মহিলা কণ্ঠ শোনা যায় তিনি বলছেন “ আমি চাই তাদের চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হোক”। এমন সময় ওই দুজন অফিসার বুঝতে পারেন যে তাদের কথোপকথন রেকর্ড করা হচ্ছে তখন তারা ভিডিও বন্ধ করতে বলেন। ঘটনাটি এফআইআর নেওয়ার কয়েক ঘন্টা আগে ঘটেছিল।

News By Tania

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে